শুক্রবার - সেপ্টেম্বর ২৯ - ২০২৩

আয়াক্স স্কুলে বর্ণবাদী ফ্লায়ার

এ ঘটনায় একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে ডারহাম ডিস্ট্রিক্ট স্কুল বোর্ড ডিডিএসবি বিবৃতিতে তারা বলেছে বিষয়টি তারা গুরুত্বের সঙ্গে নিচ্ছে

কিনজি আহমেদ যখন জানতে পারলেন যে, তার শৈশবের স্কুলে বর্ণবাদী ফ্লায়ার পাওয়া গেছে, তখন তাদের নিরাপত্তা নিয়ে ভয় কাজ করতে থাকলো তার মধ্যে। তার চার বছরের শিশু ঈগল রিজ পাবলিক স্কুলের শিক্ষার্থী। কিনজি আহমেদ শুক্রবার দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলছিলেন, এটা উদ্বেগের। এটা আমাকে ও সবাইকে ক্ষুব্ধ করেছে।

তিনি বলেন, স্কুলের একটি শ্রেণিকক্ষে এক শিশু ফ্লায়ারটি পেয়েছে। শিক্ষক ও অধ্যক্ষকে জানানোর আগে পোস্টারের ছবি তুলে রাখে শিক্ষার্থীরা।

- Advertisement -

ফ্লায়ারটি আক্রমণাত্মক ও বর্ণবাদী গালিগালাজ ও ছবিতে ভরা। কিনজি আহমেদ বলেন, প্রথম যখন আমি ফ্লায়ারটি দেখি তখন ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম।

পোস্টারটির বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে ডারহাম রিজিয়নাল পুলিশ। তারা বলছে, এগুলো রোজল্যান্ড রোড ওয়েস্ট ও র‌্যাভেনস্ক্রফট রোড এলাকায় ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে ডারহাম ডিস্ট্রিক্ট স্কুল বোর্ড (ডিডিএসবি)। বিবৃতিতে তারা বলেছে, বিষয়টি তারা গুরুত্বের সঙ্গে নিচ্ছে। ফ্লায়ারের বিষয়ে অবগত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তারা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। শিক্ষার্থী, পরিবার, কর্মী ও কমিউনিটির ওপর অনকাক্সিক্ষত এই ঘটনার কী প্রভাব পড়তে পারে সে ব্যাপারে তারা অবগত আছে। ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য আমাদের তরফ থেকে সব ধরনেরর সেবা ও সহায়তা থাকছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ডিডিএসবি কৃষ্ণাঙ্গ বর্ণবাদ মোকাবিলায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। সব ধরনের বর্ণবাদ, পক্ষপাতিত্ব ও ঘৃণার কোনো স্থান আমদের স্কুল ও কর্মক্ষেত্রে নেই এবং এগুলো আমরা মেনে নেবো না।

কিনজি আহমেদঈগল রিজ পাবলিক স্কুলের চেয়ারের দায়িত্বও পালন করছেন। তিনি বলেন, ফ্লায়ারের বিষয়টি কীভাবে মোকাবিলা করা হবে সে নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এক জরুরি বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। শেষ রাত পর্যন্ত বৈঠকটি চলে। বৈঠক থেকে আমরা বেশ কিছু সমাধান ও পরামর্শ পেয়েছি, যেগুলো শিগগিরই বাস্তবায়ন করা হবে।

কে ফ্লায়ারটি তৈরি করেছে সে ব্যাপারে কোনো ধারণা না থাকলেও কিনজি আহমেদের বিশ্বাস, এর পেছনে কোনো প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ রয়েছে, যেটা বিরক্তিকর ও আতঙ্কের। একই ধরনের ফ্লায়ার অন্য স্কুলে প্রতিবেশী কমিউনিটির বাড়িতেও ফেলা হয়েছে। স্কুল বোর্ড ও অভিভাকদের বিষয়টিকে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে শিক্ষণীয় হিসেবে গ্রহণ করা উচিত। সেই সঙ্গে শিশুদের জন্য স্কুলকে নিরাপদ করতে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।

আয়াক্স মেয়র শন কোলিয়ের বলেছেন, ফ্লায়ারে অমানবিক কৃষ্ণাঙ্গবিরোধী মন্তব্যের পাশাপাশি ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। ঘৃণা, সহিংসতা ও বর্ণবাদী কর্মকা- যে এখনো ব্যাপক মাত্রায় বিদ্যমান এর মধ্য দিয়ে সেটিই সামনে এসেছে। এ ঘটনায় কেউ আহত হলে তার প্রতি আমাদের আন্তরিক সমবেদনা থাকছে।

- Advertisement -

Read More

Recent